বাংলাদেশ, , শনিবার, ২৫ জুন ২০২২

লুলু ইলেক্ট্রনিক্স সেন্টারের কর্পোরেট শো-রুম পরিদর্শনে ড. মো. শাখাওয়াত হোসেন

  প্রকাশ : ২০১৯-০১-২১ ১৯:৫১:৪৫  

দেশীয় ব্র্যান্ড মার্সেল দেশের ইলেক্ট্রনিক্স ও ইলেক্ট্রিক্যাল পণ্যের বাজারে অবস্থান তৈরি করতে ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা নিয়েছে বলে মন্তব্য করেন ড. মো. শাখাওয়াত হোসেন

পরিস্হিতি২৪ডটকম : চট্টগ্রাম বঙ্গবন্ধু এভিনিউ সংলগ্ন কুইয়াশস্থ মার্সেল পণ্যের চট্টগ্রাম বিভাগীয় এক্সকুসিভ ডিলার লুলু ইলেক্ট্রনিক্স সেন্টারের কর্পোরেট শো-রুম-এ গতকাল (২০ জানুয়ারি ২০১৯খ্রি:) রবিবার সকাল ১১ ঘটিকায় আকষ্মিক পরিদর্শনে আসেন মার্সেল মার্কেটিং বিভাগের এডিশনাল অপারেটিভ ডাইরেক্টর ড. মো. শাখাওয়াত হোসেন। এ উপলক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ড. মো. শাখাওয়াত হোসেন বলেন, দেশের ইলেক্ট্রনিক্স ও ইলেক্ট্রিক্যাল পণ্যের বাজারে অবস্থান তৈরি করতে ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা নিয়েছে দেশীয় ব্র্যান্ড মার্সেল। এলক্ষে বছরের শুরুতেই উৎপাদন প্রক্রিয়া থেকে শুরু করে বিপণন কৌশল প্রতিটি ক্ষেত্রেই মার্সেল গ্রহণ করেছে ব্যাপক কর্মপরিকল্পনা। পণ্য মান উন্নয়নে জোরদার করা হয়েছে গবেষণা ও উন্নয়ন কার্যক্রম। বিশ্বমানের বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিত করতে ঢেলে সাজানো হয়েছে মার্সেলের সার্ভিস পয়েন্টগুলোকে। তিনি আরো বলেন, পণ্য উৎপাদনে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, সর্বোচ্চ গুণগতমান নিশ্চিত করা, বিশ্বমানের বিক্রয়োত্তর সেবা, সাশ্রয়ী মূল্য, সহজ কিস্তি সুবিধা এবং সর্বোপরি দেশের প্রায় সর্বত্র বিক্রয়কেন্দ্র থাকায় যাত্রা শুরুর মাত্র কয়েক বছরেই ক্রেতাদের আস্থার প্রতীকে পরিণত হয়েছে মার্সেল ব্র্যান্ডের পণ্য। লুলু ইলেক্ট্রনিক্স সেন্টারের চেয়ারম্যান মনছুরুল হাসান জিয়া বলেন, দেশের ভিতরেই নিজস্ব কারখানায় তৈরি মার্সেলের ফ্রিজ, এলইডি টেলিভিশন, এয়ার কন্ডিশনার, জেনারেটরসহ অন্যান্য হোম ও কিচেন অ্যাপ্লায়েন্সেস অতি অল্প সময়ে সারাদেশে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। মার্সেল ব্র্যান্ডের বৈচিত্র্যময় মডেলের এসব পণ্য মানের দিক থেকে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন। দামেও অনেক সাশ্রয়ী। মানুষের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধির সঙ্গে জীবন যাত্রার মান উন্নয়নকে বিবেচনায় নিয়ে নিজস্ব কারখানায় তৈরি করা হচ্ছে নিত্য নতুন মডেল ও ডিজাইনের বৈচিত্র্যময় পণ্য। মান নিয়ন্ত্রণে অনুসরণ করা হচ্ছে জিরো টলারেন্স নীতি। এসময় উপস্থিত ছিলেন মার্সেলের মার্কেটিং বিভাগের সহপরিচালক মো. আমির হোসাইন, লুলু ইলেক্ট্রনিক্স সেন্টারের চেয়ারম্যান মনছুরুল হাসান জিয়া, ডিজিএম মো. আবদুল জলিল রনি, মার্সেল ডিষ্ট্রিবিউশনের সিনিয়র অফিসার মো. আবদুর রাজ্জাক, নুকা ইলেক্ট্রনিক্স এর চেয়ারম্যান শাহেদুজ্জামান চৌধুরী শেখর, হোসাইন মো. বেলাল, ওয়াহিদুর রহমান, কাজল বড়ুয়া, মিথুন দাশ, সোমা দাশ প্রমূখ।
প্রেসবিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা