বাংলাদেশ, , বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১

নির্বাচনে একবারও হার না মানা কাউন্সিলর মিন্টু করোনার কাছেই হারলেন !

  প্রকাশ : ২০২১-০৩-১৮ ১৯:২৭:৪৬  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টু সমগ্র চট্টগ্রামে ‘মিন্টু কমিশনার’ ও ‘মিন্টু ভাই’ নামে পরিচিত। তিনি ১৯৭৭ সাল থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত তৎকালীন চট্টগ্রাম পৌরসভার নির্বাচিত কমিশনার ছিলেন এবং পরে ১৯৯৪ সালের জানুয়ারি থেকে পরপর ছয় মেয়াদে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত হন। সর্বশেষ গত ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও তিনি কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।

নির্বাচনে একবারও হার না মানা নগরের ১৬ নম্বর চকবাজার ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টু শেষ পর্যন্ত হেরে গেলেন করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) কাছে। এই রোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) ভোর সোয়া ৫টায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর।

নন্দিত এই রাজনীতিক চকবাজার আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টু ১৯৪৯ সালে চট্টগ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। কর্মজীবনের সূচনা করেন মূক ও বধির বিদ্যালয়ে শিক্ষকতার মাধ্যমে। ছাত্রজীবন থেকেই রাজনীতিতে জড়িত মিন্টু সমাজসেবার শত ব্যস্ততার মাঝেও নগরীর মুরাদপুরে মূক ও বধির বিদ্যালয়ে শিক্ষকতার কাজ চালিয়ে গেছেন।

অত্যন্ত সাদাসিধে ও সহজ সরল জীবনযাপনে অভ্যস্ত সাইয়্যেদ গোলাম হায়দার মিন্টু সিটি করপোরেশন প্রদত্ত কাউন্সিলরভাতা দিয়েই দৈনন্দিন জীবন অতিবাহিত করতেন। এর বাইরে তার কোনো পেশা-আয় বা জীবিকা ছিল না।

১৯৭৭ সালে ২৭ বছর বয়সে প্রথম চট্টগ্রাম পৌরসভার কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছিলেন গোলাম হায়দার মিন্টু। ১৯৮৮ সালে জাতীয় পার্টির শাসনামলে আওয়ামী লীগ নির্বাচন বর্জন করায় সেই নির্বাচনে অংশ নেননি তিনি। পরে ১৯৯৪ সালের জানুয়ারি থেকে প্রতিবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টিকিটে অংশ নিয়ে সববারই বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন।

এদিকে দীর্ঘদিনের এই জনপ্রতিনিধিকে হারিয়ে পুরো চট্টগ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ।



ফেইসবুকে আমরা