বাংলাদেশ, , বৃহস্পতিবার, ৫ আগস্ট ২০২১

ছয় দফা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে অঙ্কুরিত হয়েছিল আমাদের স্বাধীনতার স্বপ্নবীজ : ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উপলক্ষে বিবৃতিতে আলাউদ্দীন চৌধুরী মোর্শেদ

  প্রকাশ : ২০২১-০৬-০৮ ১৮:২১:৫৩  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কৃষি ও সমবায় বিাষয়ক উপকমিটির সদস্য , বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় কমিটির শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক , বৃহত্তর চট্টগ্রাম জেলার প্রধান সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ পরিবেশ উন্নয়ন সোসাইটি ( বাপউস) এর ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলাউদ্দীন চৌধুরী মোর্শেদ ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উপলক্ষে গনমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলেছেন , বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে ৭ জুন এক অবিস্মরণীয় ও তাৎপর্যপূর্ণ দিন । কেননা এই ছয় দফা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে অঙ্কুরিত হয়েছিল স্বাধীনতার স্বপ্নবীজ ।আর এই ৬ দফা হলো বাংলাদেশের তথা বিশ্বের মুক্তিকামী নিপীড়িত ও নির্ষাতিত মানুষের মুক্তি আন্দোলনের অনুপ্রেরনার উৎস ও মুক্তির সনদ ।

তিনি বলেন,পাকিস্তানি শাসন-শোষণ-বঞ্চনা থেকে মুক্তির লক্ষ্যে স্বৈরাচার আইয়ুব সরকারের বিরুদ্ধে ১৯৬৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি লাহোরে তৎকালীন পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের সব বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে নিয়ে ডাকা এক জাতীয় সম্মেলনে পূর্ব বাংলার জনগণের পক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছয় দফা দাবি উত্থাপন করেন।পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১১ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় ফিরে ছয় দফার পক্ষে দেশব্যাপী প্রচারাভিযান শুরু করেন এবং বাংলার আনাচে-কানাচে প্রত্যন্ত অঞ্চলে গিয়ে জনগণের সামনে ছয় দফার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেন। বাংলার সর্বস্তরের জনগণ এই ৬-দফা সম্পর্কে সম্যক ধারণা অর্জন করে এবং ছয় দফার প্রতি স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থন জানায়।
আলাউদ্দীন চৌধুরী মোর্শেদ বলেন পাকিস্হানী শাসক গোষ্ঠীর দীর্ঘ দিনের শোষণ, নির্যাতন আর পরাধীনতার ঘোর অন্ধকারে আলোর মশাল হয়ে দাঁড়িয়েছিল ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস। সেই আলোর পথ বেয়েই স্বাধীনতার দিকে ধাপিত হতে থাকে বাঙালি। বঙ্গবন্ধুর ডাকে দীর্ঘ ৯ মাসের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর আপন ভূখণ্ড লাভ করে বাংলাদেশ।
বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন,বঙ্গবন্ধুর দেয়া ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণেও ছয় দফার প্রতিটি দফার পর্যালোচনা ছিল। পরবর্তীতে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন মুজিবনগর সরকারের নেতৃত্বে যুদ্ধ পরিচালনা এবং দেশের অভ্যন্তরে সকল সরকারি প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হয় ৬ দফার ভিত্তিতে। স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ সৃষ্টিতে ছয় দফার ভূমিকা অপরিসীম।পরিশেষে তিনি ইতিহাসের মহানায়ক ,স্বাধীন বাংলাদেশের স্হপতি বঙ্গবন্ধুশেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন এবং সেদিনের শহীদসহ মুক্তিসংগ্রামের সব শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা