বাংলাদেশ, , শনিবার, ২৫ জুন ২০২২

মৃত্যুঞ্জয়ী যাত্রামোহন সেন গুপ্তের স্মরণ সভায় বক্তারা : ভারতবর্ষের রাজনীতিক ইতিহাসে যাত্রামোহন সেন উদ্ভাসিত মনীষী

  প্রকাশ : ২০১৯-১১-১৪ ১৭:৩৭:৩৯  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : মৃত্যুঞ্জয়ী যাত্রামোহন সেন রাজনীতিক ও সমাজকর্মী হিসেবে ভারতবর্ষের ইতিহাসে কালজয়ী নাম। ভারতীয় উপমহাদেশের রাজনীতিক ইতিহাসে কিংবদন্তী, চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী চন্দনাইশের বরমার ইতিহাসের কালজয়ী মহাপুরুষ, রাজনীতিবিদ, সমাজ সংস্কারক, শিক্ষানুরাগী ও ঐতিহ্যবাহী চট্টগ্রামের জেএমসেন হলের প্রতিষ্ঠাতা মৃত্যুঞ্জয়ী যাত্রা মোহন সেন এর ১০০ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে চন্দনাইশ উন্নয়ন ফোরাম চট্টগ্রামের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ১৩ নভেম্বর বিকালে জেএমসেন হল চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। চন্দনাইশ উন্নয়ন ফোরাম চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট ইতিহাসবেত্তা সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চন্দনাইশের কৃতিসন্তান, প্রাক্তন ছাত্রনেতা ও বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব এম.এ হাশেম রাজু। সহ-সভাপতি বিশিষ্ট সাংবাদিক এ কে এম আবু ইউসুফের সঞ্চালনায় প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন আলোকিত গ্রাম বরমার কৃতী সন্তান বিশিষ্ট সাংবাদিক, বরমা প্রেসকাবের সভাপতি সৈয়দ শিবলী ছাদেক কফিল। বিশেষ অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ডাঃ মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন,দৈনিক হাটহাজারী সমাচারের সম্পাদক কে এম ইউসুফ,প্রাবন্ধিক এস এম ওসমান,সাংস্কৃতিক কর্মী চৌধুরী মোহাম্মদ শফি, সাংবাদিক সোহেল তাজ, , প্রবীন রাজনীতিবিদ চকবাজার থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অমর কান্তি দত্ত, প্র্রধান শিক্ষক মহিউদ্দিন, নুর মোহাম্মদ দোহাজারী, আলহাজ্ব নওশা মিয়া, ছাত্রনেতা ফয়সাল উদ্দিন সাদ্দাম, ডাঃ কাঞ্চন পাল, হ্যাপি দাশ, মোহাম্মদ আবদুল করিম, আলহাজ নুরুল আলম প্রমূখ। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলহাজ্ব এম.এ হাশেম রাজু বলেছেন, ভারতীয় উপমহাদেশের রাজনীতির আকাশে চট্টগ্রামের এই কৃতিসন্তান যাত্রা মোহন সেন ছিলেন কালজয়ী মহাপুরুষ। তাঁর মতো সমাজহিতৈশী, শিক্ষানুরাগী, দানবীর বর্তমান সমাজে বিরল। তিনি অসম্প্রদায়িক চেতনার মানুষ ছিলেন। নিজ গুন ও যোগ্যতার উদাহারণে তাঁর মতো রাজনীতিক ও দেশপ্রেমিক আজকের সমাজে পাওয়া কঠিন। তিনি আরো বলেছেন রাজনীতিবিদ হিসেবে যাত্রা মোহন সেন যতবড় ছিলেন, মানুষ হিসেবে ছিলেন তার চাইতেও বড়। যাত্রা মোহন সেন এর রহমতগঞ্জস্থ ঐতিহাসিক বাড়িটি চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক স্মৃতির চিহ্ন গুলো একত্রিত করে সংরক্ষণ পূর্বক রহমতগঞ্জস্থ ঐতিহাসিক বাড়িটি একটি মিউজিয়াম অথবা সংগ্রহশালা রূপে প্রতিষ্ঠার জন্য সরকারের সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র জননেতা আ জ ম নাছির উদ্দিনের প্রতি দাবী জানান।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা