বাংলাদেশ, , বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

মতিঝর্ণা অবৈধ উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটি আয়োজিত চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন

  প্রকাশ : ২০১৯-১১-৩০ ২০:১৮:০৫  

মতিঝর্ণা অবৈধ উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটি আয়োজিত চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা :
পূর্ণবাসন না হওয়া পর্যন্ত শতবছরের ঐতিহ্য ও বাপদাদার  বসতভিটা থেকে উচ্ছেদের পাঁয়তারা যেকোন মূল্য রুখে দাঁড়াব

 

পরিস্হিতি২৪ডটকম : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন আওতাধীন ১৪নং লালখান বাজার ওয়ার্ডের মতিঝর্ণা এলাকায় লক্ষাধিক নাগরিক সি. এস মূলে মালিকানা স্বত্বে প্রায় ১০০ বছরের অধিককাল সময় বসবাস করে আসছে। এখানে মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও ৩০০ শহীদ পরিবার বসবাস করে। এছাড়াও দীর্ঘদিন যাবৎ আমরা নিয়মিতভাবে হোল্ডিং ট্যাক্স, আয়কর, গ্যাসের বিল, পানির বিল, বিদ্যুৎ বিল সহ সেবা সংস্থার যাবতীয় কর পরিশোধ করে আসছি। এখানে সরকারী বেসরকারী অনুদানের ৬টি মসজিদ, ৩টি মন্দির, ২টি হেফজখানা, ৩টি মাজার শরীফ, ২টি এতিমখানা বিদ্যমান আছে। এছাড়াও সরকারী ও সেরকারী ৬টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় আছে। নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ২টি পুরুষ ও ২টি মহিলা ভোট কেন্দ্র মতিঝর্ণা এলাকায় অবস্থিত আছে যার ভোটার সংখ্যা প্রায় ২৯০০০। মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধা পরিবার সন্তান ও মুক্তিযুদ্ধের স্বপরে ঘাটি হিসাবে পরিচিত প্রায় লাধিক মুসলমান, হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রীস্টান সম্প্রীতির বন্ধন তৈরী করে দীর্ঘ ১০০ বৎসরের অধিককাল যাবৎ ওয়ারিশগণ বংশানুক্রমে মালিকানা প্রাপ্ত হয়ে উক্ত সম্পত্তিতে বসবাস করে আসলেও সম্প্রতি বাংলাদেশ রেলওয়ে চট্টগ্রাম এর কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মচারী/কর্মকর্তা উচ্চ আদালতের রায় এবং আদেশের তথ্য গোপন করে ও ভূল ব্যাখ্যা দিয়ে প্রশাসনের নিকট মতিঝর্ণা এলাকাকে হেয় করে অবৈধ উচ্ছেদের মতো ঘটনা সৃষ্টির অবতারণা করছে। আমরা অতীব দুঃখ ভারাক্রান্ত হৃদয়ে জানাচ্ছি যে, আমাদের বাপ দাদার ভিটা ভূমি ও জন্মস্থান মতিঝর্না এলাকার বিষয়ে উচ্চ আদালতের মামলা ও বাংলাদেশ রেলওয়ে চট্টগ্রামকে মাননীয় সুপ্রীম কোর্ট এর হাইকোর্ট বিভাগের রুল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত স্থাগিতাদেশ গোপন এবং জজ আদালতের মালিকানা স্বত্বে মামলা বিচারাধীন থাকা অবস্থায় ০৯/১১/২০১৯ তারিখে জেলা প্রশাসন, পুলিশ কমিশনার সি.এম.পি. চট্টগ্রাম সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন সংস্থাকে অবহিতপূর্বক অবৈধ উচ্ছেদ সম্পর্কে পত্র প্রেরণে আমাদেরকে ক্ষুদ্ধ করেছে এবং স্থানীয় বসবাসকারীদের মধ্যে আতংক সৃষ্টি করে এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। সর্বোপরি স্থানীয় জনগণকে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে তাদের অসৎ স্বার্থ হাসিলের পাঁয়তারা করছে। স্বাধীনতা পরবর্তী কাল হতে একদল কুচক্রী ভূমিদস্যুর শ্যেন দৃষ্টি আমাদের এই বাপ দাদার আবাসস্থলের উপর কু-নজর পড়ায় বার বার বিভিন্ন মহলকে ব্যবহার করে আমাদেরকে অবৈধ ভাবে উচ্ছেদ করার ষড়যন্ত্র চালিয়ে আসছিল। তারই ধারাবাহিকতায় দুর্নীতি বাজ রেলওয়ে কর্মকর্তাদের যোগসাযোশে ১৯৯৩ সালে অত্র এলাকার বাসিন্দাদের ভোটার তালিকা থেকে বাদ দিলে তৎকালীন মেয়র চট্টলবীর এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী দৃঢ় ও দীপ্ত পদক্ষেপে আমরা আমাদের ভোটাধিকার ফিরে পাই। সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা আরো বলেন, এলাকার বিপুল সংখ্যক লোকজন অত্যন্ত ক্ষুদ্ধ হয়ে আছে তাদের জন্মভূমি ও বাপ দাদার ভিটার উপর কারো হস্তক্ষেপ তারা মেনে নিবে না। বুকের তাজা রক্ত দিয়ে হলেও তারা এই অবৈধ উচ্ছেদ প্রক্রিয়াকে প্রতিরোধ করবে। আমরা দেশের প্রচলিত আইন মোতাবেক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছি। এই এলাকার সমস্ত জনপ্রতিনিধিরা আমাদের সাথে একত্মতা ঘোষণা করেছেন এবং আমাদের যৌক্তিক দাবীর প্রতি এলাকাবাসীর পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। আমরা দেশের প্রচলিত আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আমরা সবসময়ই দেশের সর্বোচ্চ আদালতের প্রতি ও শ্রদ্ধাশীল। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মতিঝর্ণা অবৈধ উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক আবুল হাসনাত মোঃ বেলাল। সদস্যসচিব জিয়াউর রহমান এর পরিচালনায় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন- ১৪নং লালখান বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর এ এফ কবির আহমেদ মানিক, পেশাজীবি নেতা আমজাদ হোসেন হাজারী, মতিঝর্ণা অবৈধ উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটির সদস্য তপন সিং, মোঃ শাহজাহান কোম্পানী, মিজানুর রহমান, শ্রমিক নেতা নজরুল ইসলাম সরকার, স্বপন চৌধুরী বড় বাবু, কাজল সিং, বিশ্বজিৎ চৌধুরী প্রমূখ। সংবাদ সম্মেলন শেষে একই দাবীতে প্রেসকাব চত্বরে মতিঝর্ণা অবৈধ উচ্ছেদ প্রতিরোধ কমিটি আয়োজিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন মতিঝর্ণা মসজিদ কমিটির সভাপতি নুরুল ইসলাম। মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম গণঅধিকার ফোরামের মহাসচিব এম.এ.হাশেম রাজু, ভাইস-চেয়ারম্যান মোঃ খোরশেদ আলম চৌধুরী। এলাকাবাসীর পে বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট সমাজসেবক মোজাম্মেল হোসেন সোহাগ, রাজনীতিবিদ রেজাউল করিম রেজু, যুবনেতা শাহনেওয়াজ কুতুবী, রাজনীতিবিদ স্বপন কুমার চৌধুরী, সমাজসেবক জসিম উদ্দিন, রফিক ভান্ডারী, রাজনীতিবিদ মোস্তাক হোসেন ময়নাল, সমাজসেবক আবদুর রহিম মিল্লাত, সংগঠক মোঃ আলমগীর, মতিঝর্ণা মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাধন সিং প্রমূখ।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা