বাংলাদেশ, , সোমবার, ২৭ জুন ২০২২

ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রাম ও নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু একটি ইতিহাস

  প্রকাশ : ২০১৯-০১-২৩ ১৮:০৮:১৬  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : ভারতীয় উপমহাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের কিংবদন্তী মহাপুরুষ, দেশপ্রেমিক, মহাবিপ্লবী নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসুর ১২২তম জন্মবার্ষিকী স্মরণে চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের উদ্যোগে ২৩ জানুয়ারি বিকেলে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ পরিবেশ উন্নয়ন সোসাইটি (বাপউস) এর চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক ও সাংবাদিক এ কে এম আবু ইউসুফের সভাপতিত্বে এই সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট ইতিহাস গবেষক ও সিএইচআরসির সভাপতি সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীন। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, বিশিষ্ট ইতিহাস গবেষক অধ্যক্ষ মুহাম্মদ ইউনুচ কুতুবী, অধ্যাপক দিদারুল আলম চৌধুরী, প্রবীন শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ নুরুল আলম, প্রধান শিক্ষক মিন্টু কুমার দাশ, সাংবাদিক অনুতোষ দত্ত বাবু, ডাঃ বিমল তালুকদার, কাজী মুকিত উদ্দিন, অমর কান্তি দত্ত, বিপ্লব ঘোষ, সুজিত সেন, টিটু দাশ, অমিয় মোহন বালা, উজ্জ্বল ধর, দোলন মহাজন, নয়ন বড়ুয়া প্রমূখ। সভায় বক্তারা বলেন, পরাধীন ভারতবর্ষকে স্বাধীনতার জন্য যেকজন নজন্মা মহাপুরুষ বিপ্লব করে কালজয়ী হয়েছেন তাঁদের অন্যতম নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু। সুভাষ বোসের একটি কালজয়ী বাণী মানুষকে আজও সাহসী করে তোলেন, “রক্ত দাও, স্বাধীনতা দেব”। বক্তারা আরো বলেছেন নেতাজীর জীবনদর্শনই ছিল স্বাধীন দেশের সামাজিক উন্নতি। আর সেই পথে এগোবার জন্য তাঁর বিভিন্ন উক্তিগুলি রীতিমত অনুপ্রেরণা দেয়। ভারতীয় উপমহাদেশের জাতীয় রাজনীতি তথা সমাজবোধে তাঁর প্রাসঙ্গিকতা কোন দিনই অম্লান হবে না। তিনি একটা জাতিকে লড়বার অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন। নেতাজীর শিক্ষা হল দেশ থেকে কিছু পাওয়া নয়, দেশকে কিছু দেওয়া। সভায় বক্তারা আরো বলেছেন, ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রাম ও নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু একটি ইতিহাস। এই ইতিহাস প্রজন্মকে জানানো আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য। সভার শুরুতে নেতাজীর জীবনকর্মের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে সম্মান প্রদর্শন করা হয়।
প্রেসবিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা