বাংলাদেশ, , বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

বাংলাদেশ-ভারত-নেপাল ইতিহাস মঞ্চের জাতীয় সম্মেলনে বক্তারা : দুই বাংলার সাহিত্য সংস্কৃতির ইতিহাস বিশ্বব্যাপী তুলে ধরার আহ্বান

  প্রকাশ : ২০১৯-১১-১৭ ১৮:৩৮:১৪  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, কবি সাহিত্যিক শ্রীতারকনাথ দত্ত বলেছেন, এপার বাংলা-ওপার বাংলার সমৃদ্ধির ইতিহাস বিশ্বব্যাপী তুলে ধরে বাঙালি জাতির গৌরব উজ্জ্বল ইতিহাস মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে হবে। আমাদের হাজার বছরের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সাহিত্য, বিশ্বসাহিত্যের গৌরব উজ্জ্বল ভূমিকা রয়েছে। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের কালজয়ী সাহিত্য কর্ম পৃথিবীব্যাপী মানুষকে আলোকিত করছে। বর্তমান প্রজন্মকে সাহিত্য-সংস্কৃতির প্রতি অনুরাগী ও আগ্রহী করে তুলতে প্রাচীন কবি সাহিত্যিকদের জীবন কর্ম তুলে ধরতে হবে। আমাদের এই প্রজন্মের অনেকের বাংলা সাহিত্যের প্রাচীন গৌরবের কথা অজানা রয়েছে। আমাদের কবি. সাহিত্যিক. লেখক-গবেষকদের উচিত প্রাচীন সময়ের পুঁথিপত্র রচনার মাধ্যমে কালজয়ী ইতিহাস যাঁরা রচনা করেছেন সেই মণীষীদের জীবনকর্ম তুলে ধরা। প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলহাজ্ব এম.এ হাশেম রাজু বলেছেন, ভারতীয় উপমহাদেশের গৌরব উজ্জ্বল ইতিহাস এই চট্টগ্রামের মাটিতেই রচিত হয়। চট্টগ্রামের নজন্মা মহাপুরুষগণ ভারতীয় উপমহাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম এই চট্টগ্রাম থেকেই শুরু করেন। তিনি লেখক-গবেষক-সাহিত্যিকদের চট্টগ্রাম ও বাংলার ঐতিহাসিক ইতিহাস বিশ্বব্যাপী তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে চট্টগ্রামের বিপ্লবীদের ইতিহাস জাতীয় পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করার আ্হ্বান জানান। চট্টগ্রাম নগরীর কাশফুল অডিটরিয়ামে বাংলাদেশ-ভারত-নেপাল ইতিহাস মঞ্চের জাতীয় সম্মেলন- ১৪২৬ বাংলা গতকাল (১৫ নভেম্বর ২০১৯) শুক্রবার বিকেলে অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, মধ্যযুগের কবি আবদুল হাকিম, মহাকবি আলাওল, বিপ্লবী মহেশচন্দ্র বড়ুয়া ও আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ স্মরণে জাতীয় সম্মেলনের উদ্ভোধনীয় সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে ভারতীয় সাহিত্যিক শ্রীতারকনাথ দত্ত এ কথাগুলো বলেন। বাংলাদেশ-ভারত-নেপাল ইতিহাস মঞ্চের সভাপতি ডা. এম এ মুক্তাদীরের সভাপতিত্বে ও মঞ্চের সাধারন সম্পাদক ইতিহাসবেত্তা সোহেল মো.ফখরুদ-দীনের পরিচালনায় সভার উদ্বোধন করেন প্রাক্তন মৎস্য সচিব সাহিত্যিক সিরাজুল কবির। প্রধান অতিথি ছিলেন রাজনীতিবিদ ও ক্রীড়া উন্নয়ন সংগঠক আলহাজ্ব এম এ হাশেম রাজু। প্রধান আলোচক ছিলেন ভারতীয় লেখক কবি সাহিত্যিক শ্রীতারকনাথ দত্ত। বিশেষ অতিথি ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের বাংলা সাহিত্য সমিতির সহ সভাপতি জিতেন্দ্র দাস, কবি চন্দনা বড়ুয়া, শিক্ষক তপন কান্তি বড়ুয়া, কবি উদয়ন বড়ুয়া, লেখক অধ্যাপক রিপন চক্রবর্তী, রাজনীতিবিদ অমর কান্তি দত্ত, মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, কবি আব্দুল হালিম, এস এম ওসমান, মাস্টার আবুল হোসেন, অধ্য মোহাম্মদ ইউনুস কুতুবী, লায়ন সিএসকে সিদ্দিকী, সৌমেন বড়ুয়া, মধু সরকার, মঞ্জুশ্রী সরকার চৌধুরী, দীপঙ্কর গাঙ্গুলি, কবি বসুমতি সাহা, কবি সাহা গাঙ্গুলি, কবি ইমাদ উদ্দিন, হাজী নুর মোহাম্মদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা