বাংলাদেশ, , রোববার, ৪ ডিসেম্বর ২০২২

পরমাণু বিজ্ঞানী প্রয়াত ড. এম.এ ওয়াজেদ মিয়ার ৭৭ তম জন্মবার্ষিকী পালিত

  প্রকাশ : ২০১৯-০২-১৬ ১৯:১৪:১৮  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বামী ও দেশবরেণ্য পরমাণু বিজ্ঞানী প্রয়াত ড. এম.এ ওয়াজেদ মিয়ার ৭৭তম জন্মবার্ষিকী উপলে আজ শনিবার ১৬ ফেব্রুয়ারী বিকাল ৪টায় নগরীর মোমিন রোডস্হ একটি রেস্টুরেন্টে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় । ডিজিটাল বাংলাদেশ পাবলিসিটি কাউন্সিল ও বিজয় ৭১ এর যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিজয় ৭১ এর প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক লায়ন ডাঃ আর কে রুবেল।
এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধু সমাজ কল্যাণ পরিষদ চট্টগ্রাম দণি জেলার সহ-সভাপতি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন চৌধুরী। প্রধান আলোচক ছিলেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা লায়ন এম এ নেওয়াজ। আরো বক্তব্য রাখেন ডিজিটাল বাংলাদেশ পাবলিসিটি কাউন্সিলের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক স ম জিয়াউর রহমান, সহ-সভাপতি প্রকৌশলী টি কে শিকদার, বিজয় ৭১ এর সাধারণ সম্পাদক ডাঃ জামাল উদ্দিন। মোঃ কুতুব উদ্দিন রাজুর সঞ্চালনায় আরো উপস্থিত ছিলেন ঘাডশির প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক উদয়ন হোসেন বেলাল, সংগঠক সুরেশ দাস, নারী নেত্রী সৈয়দা শাহানারা বেগম, কবি জান্নাতুল ফেরদৌস সোনিয়া, বাবর মুনাফ।
বক্তারা বলেন, বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী ডঃ ওয়াজেদ মিয়া ছিলেন একজন সদালাপী, নির্লোভ ও নিরহংকার ব্যক্তিত্ব। মেধা ও যোগ্যতায় তিনি ছিলেন সমকালীন সময়ে অনন্য উচ্চতায় আলোকিত ব্যক্তি। বক্তারা আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাফল্যময় কর্মকান্ডে ডঃ ওয়াজেদ মিয়া ছিলেন অনুপ্রেরণার উৎস। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ও সহযোগিতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এগিয়ে যাওয়ার পথ সহজ করে ডঃ ওয়াজেদ মিয়া। তার মত ব্যক্তিত্বের আজকের সমাজের বড় প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন। আলোচনা সভা শেষে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়
উল্লেখ্য,তিনি ১৯৪২ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার লালদিঘীর ফতেহপুর গ্রামের মিয়া পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৬৭ সালের ১৭ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় মেয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের এক ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় এবং এক মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল।
প্রেসবিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা