বাংলাদেশ, , বুধবার, ৫ অক্টোবর ২০২২

চট্টগ্রামের প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী সৈয়দ আক্রম আলী শাহ (রহ.)-এর মাজার ভাঙার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

  প্রকাশ : ২০১৯-০১-১৪ ১৬:৩১:০৩  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : মহান অলিয়ে কামেল, পবিত্র ইসলাম ধর্ম প্রচারক, শাহ্সুফি হযরত সৈয়দ আক্রম আলী (রহ.) আজ হতে প্রায় চারশত বছর পূর্বে ইরাক থেকে ধর্মপ্রচার ও ইসলাম ধর্মের সত্যবাণী নিয়ে বাংলার জমিনের চট্টগ্রামে আসেন। তিনি চট্টগ্রামের জনাকীর্ণ পাহাড় জঙ্গল এলাকা বর্তমান ওআরনিজাম রোড খুলশীহিলে স্থায়ী বসবাস করেন। সেখানে তিনি প্রয়াত হলে বসবাসকৃত পাহাড়ের উপর তাঁকে সমাহিত করা হয়। আজ হতে প্রায় চারশত বছর পূর্বের মাজার শরীফ এখনো বিদ্যমান। এখানে প্রতিনিয়ত ধর্মপ্রাণ মানুষ আসেন মনের বাসনা পূরণ ও ধর্মের সত্যবাণীকে ধরে রাখার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা নিয়ে। এই মাজার শরীফ কেন্দ্রিক গড়ে উঠেছে মসজিদ, মক্তব, হেফজখানা, দাতব্য চিকিৎসাকেন্দ্র। প্রতিনিয়ত এখানে মানব হিতকর কাজ পরিচালিত হয়ে আসছে। বাংলাদেশ সরকারের ওয়াকফ প্রশাসনের নীতি অনুসারে এই মাজার ও অন্যান্য জায়গা নিয়ে সরকারি নিবন্ধন রয়েছে, যার ইসি নং ১৭২৯০। সম্প্রতি (২ ও ৮ জানুয়ারি ২০১৯) উক্ত মাজার কমপ্লেক্স জোরপূর্বক দখলের জন্য একদল উচ্ছৃঙ্খল ও স্বার্থানেষী মহল হামলা চালায়। এ সময় তাদের হামলায় আহত হন মাজারের খাদেম সৈয়দ আক্রম আলী, আছিয়া আক্তার, রোজিনা, রোকসানা বেগম। এই বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসনকে লিখিতভাবে অভিযোগ দাখিল করা হয়। এদিকে প্রাচীন এই পবিত্র মাজার শরীফ ধ্বংসের হাত থেকে রা ও মাজার শরীফের পবিত্রতা রার দাবিতে ১৪ জানুয়ারি সোমবার ২০১৯ সকালে চট্টগ্রাম মোমিন রোডস্থ মোগল রেস্তোরাঁয় জাতীয় দরগাহ মাজার সংস্কার সংরণ কমিটির উদ্যোগে এক সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে নিন্দনীয় ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থার দাবি ও মাজার শরীফ সংরক্ষণ ও ভূমিগুলো রক্ষার জন্য দাবি জানিয়ে বক্তব্য রেখেছেন জাতীয় দরগাহ মাজার সংস্কার সংরক্ষণ কমিটির চেয়ারম্যান ও ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা রেজাউল করিম তালুকদার (ম.জি.আ.)। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় দরগাহ মাজার সংস্কার সংরক্ষণ কমিটির মহাসচিব মাওলানা মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন আশরাফী (ম.জি.আ), সংগঠনের সাবেক মহাসচিব ও ইতিহাসবিদ সোহেল মো. ফখরুদ-দীন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ নুর হোসেন, কাজী মো. আহসানুল মোর্শেদ কাদেরী, মাজারের খাদেম সাহেব মোহাম্মদ সৈয়দ আক্রম আলী, শাহজাদা সৈয়দ গোলাম রসুল (ম.জি.আ), মুক্তিযোদ্ধা মহিউদ্দিন হায়দার, সাবের আহমদ, আছিয়া আক্তার রোজিনা, রোকসানা বেগম, দেওয়ান মো. আনোয়ারুল আহসান, মুক্তিযোদ্ধা শামসুল হুদা, মুক্তিযোদ্ধা আবদুল কাদের তালুকদার, আফতাব উদ্দিন, মাওলানা সালামত উল্লাহ, মাওলানা আবু মুছা আল কাদেরী প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেছেন, চট্টগ্রামকে বলা হয় বার আউলিয়ার শহর। এই শহরের আনাচে কানাচে মহান অলি দরবেশ বুজুর্গদের চিহ্নস্থান পবিত্র মাজার শরীফ রয়েছে। পবিত্রময় পূর্ণ ইবাদতের এই মহান অলি শাহসূফি সৈয়দ আক্রম আলী (রহ.)-এর মাজার শরীফকে ধ্বংসের পায়তারায় একশ্রেণির অসাধু উচ্ছৃঙ্খল ভূমিদস্যু লিপ্ত হয়েছে। এই বিষয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ধর্মমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ চট্টগ্রামের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের কাছে সহযোগিতা কামনা করেছেন।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা