বাংলাদেশ, , বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

কোরেশী মাগন ঠাকুর চট্টগ্রামের প্রথম প্রধানমন্ত্রী : সোহেল মো: ফখরুদ-দীন

  প্রকাশ : ২০১৯-১০-১৫ ১৮:৩৬:৩৭  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : রোসাঙ্গ রাজসভার বাঙালি কবিদের মধ্যে অন্যতম কোরেশী মাগন ঠাকুর। তিনি আরবি বাংলা ফার্সি বর্মী সংস্কৃতি ভাষার পণ্ডিত ছিলেন। কোরেশী মাগন ঠাকুর (১৭শ শতক) মধ্যযুগীয় বাংলা সাহিত্যের একজন কবি। চন্দ্রাবতী কাব্যের রচয়িতা কোরেশী মাগন ঠাকুর এবং আরাকানের মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দিক বংশজাত মাগন ঠাকুর।
তাঁর জীবনকথা আলোচনা করা হয়। মাগন ঠাকুরের পিতা বড়াই ঠাকুর (শ্রীবড় ঠাকুর) ছিলেন আরাকানের রোসাঙ্গ রাজসভার বড় কর্তা ও পরবর্তিতে একজন মন্ত্রী। রোসাঙ্গের অধিপতি নরপতিগি (১৬৩৮-৪৫) বৃদ্ধ বয়সে তাঁর একমাত্র কন্যার অভিভাবকত্বের ভার মাগন ঠাকুরের ওপর ন্যস্ত করেন। তাঁর মৃত্যুর পর রাজকন্যা মুখ্য পাটেশ্বরী হলে মাগন ঠাকুর মুখ্যপাত্রের (মুখ্যমন্ত্রীর) পদমর্যাদা লাভ করেন।

বাংলা, ফারসি, বর্মি ও সংস্কৃত ভাষায় মাগন ঠাকুরের অগাধ পান্ডিত্য ছিল। সঙ্গীত ও অলঙ্কারশাস্ত্রেও তাঁর দখল ছিল। রোসাঙ্গের কবি আলাওল তাঁর পৃষ্ঠপোষকতা লাভ করেন এবং তাঁরই নির্দেশে পদ্মাবতী (১৬৫২) ও সয়ফুলমুলুক বদিউজ্জামাল (১৬৫৯) কাব্য রচনা করেন। মাগন ঠাকুর গুণীর সমাদর করতেন এবং তিনি নিজেও ছিলেন নানা গুণের অধিকারী। তাঁর রচিত চন্দ্রাবতী কাব্যের একটিমাত্র পুথি পাওয়া গেছে। এটি লোককাহিনী আশ্রিত রোমান্টিক প্রণয়কাব্য। বর্ণনাধর্মী এ কাব্যে সাহিত্যিক গুণের অভাব থাকলেও মধ্যযুগের কাব্য হিসেবে এর ঐতিহাসিক গুরুত্ব রয়েছে – সুত্রঃ ওয়াকিল আহমদ, বাংলা পিডিয়া। কোরেশী মাগন ঠাকুর এর জন্ম চট্টগ্রাম জেলার বর্তমান পটিয়ার চক্রশালায় গ্রামে। ঐতিহাসিক ড. মুহম্মদ এনামুল হক ও সাহিত্য বিশারদ খ্যাত মুন্সি আব্দুল করিম তাঁর গবেষণায় প্রমাণ করেছেন মাগন ঠাকুর চট্টগ্রামের সন্তান এবং মুসলমান।
তাঁর জন্ম ও বংশ নিয়ে পদ্মাবতী পুঁথিতে বর্ণিত হয়েছে :
” সিদ্দিক বংশেত জন্ম,
শেখজাদাজাত
কুলে শীলে সৎকর্মে ভুবন বিখ্যাত। এক মহাপুরুষ আছিল সেই দেশে,মহাসত্য মুসলমান সিদ্দিকের বংশে”।
তথ্যসুত্রঃ
চট্টগ্রামের সোনার মানুষ; সোহেল মো.ফখরুদ-দীন।
বাংলা সাহিত্যে চট্টগ্রামের অবদান;অধ্যাপক শাহেদ আলী।



ফেইসবুকে আমরা