বাংলাদেশ, , বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২

উস্তাজ অধ্যক্ষ মাওলানা ফখরুদ্দীন স্মৃতিতে চীর অম্লান : মাওলানা মাসুক আহমদ

  প্রকাশ : ২০২২-০৬-১৮ ১৪:১৮:৩২  

পরিস্থিতি২৪ডটকম : আমার উস্তাজ মাওলানা ফখরুদ্দীন (রহ) শুধুমাত্র একজন শিক্ষক নয় , ইলমে ওহীর এক প্রকৃত বাহক,তাফসীর, হাদীস, আকাইদ, সিয়ার, ফিতন, ফরাইজ, ফিকহ সহ ইলমের সকল শাখা প্রশাখায় যার বিচরণ ছিলো সমান, জনাবের ক্লাস ২/৩ পিরিওড একাধারে প্রায়ই করেছি, মনে হতো সময় যেন ফাঁকি দিয়ে চলে যাচ্ছে।ক্লাসে থাকতো প্রাণচাঞ্চল্য,আনন্দঘণ,অংশগ্রহণ মূলক, জনাব ক্লাসে উদাহরণ দিয়ে বুঝাতেন, মনে হতো যেন জনাব ইমাম বোখারী, মুসলিমের যুগের লোক, মাশা’আল্লাহ, যতোটুকু শিখেছি তার বেশী অংশ জনাবের অবদান , আল্লাহ জনাবকে জান্নাতের আ’লা মাক্বাম দান করুন, আমাদের কামিলের এক ছাত্র ইমামতি করতেন, একদিন জনাব কী যেন তাকে জিঞ্জেস করে বলেন এই ইমাম তুমি বলো, সে আমতা আমতা করলে জনাব হাসি দিয়ে বলেছিলে আমিতো মক্কার ইমামকে বলি নাই, এরপর থেকে আমরা ঐ ছাত্রকে মক্কার ইমাম ডাকতাম, জনাবের ছাত্ররা কেউ সচিব, কেউ হাইকোর্টের বিচারপতি, আইনজীবী, ব্যাংকার, সকল ক্ষেত্রে ছড়িয়ে আছেন। ফতেহপুর মাদরাসায় বোখারী আউয়ালের শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে জনাব একটি মজার গল্প বলেছিলেন, যা থেকে অনেক শিক্ষা নিয়েছি।
বিগত তত্বাবধায়ক সরকারের শুরুর দিকে আমরা তখন আলিয়া মাদরাসার হোষ্টেলে, ক্যান্টনমেন্ট থেকে সেনা অফিসার ফোন করে জনাবকে কী যেন বলেছিলেন, আমাদের সমনে জনাব বললেন আমার মাদরাসায় আলিম তৈরী হয়, এখানে কোন সন্ত্রাসী নেই, আরেক দিন ঐ অফিসার আবার ফোন করলে জনাব ধমক দিয়ে অনেক কথা শুনিয়েছিলেন, তাতে জনাবে দৃঢ়তা ও মাদরাসার প্রতি আন্তরিকতার প্রকাশ পেয়েছিলেন, যাহোক জীবনে চলার পথে অনেক কিছু জনাবের কাছ থেকে শেখা, যা আজো কাজে লাগতেছে, এমন শতশত স্মরনীয় ঘটনার সাক্ষী আমরা, এমন মাহির উস্তাজে সান্নিধ্য পাওয়াটাই সৌভাগ্যের বিষয়, পরিশেষে মা’বুদের দরবারে আকুতি তিনি যেন জনাবকে উত্তম বিনিময় দান করেন।

লেখক : অধ্যক্ষ, জালালাবাদ ইন্টারন্যাশলান দাখিল মাদরাসা।

 

 

 



ফেইসবুকে আমরা