বাংলাদেশ, , বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯

চট্টগ্রামে আজও পাটকল শ্রমিকদের রাজপথ-রেলপথ অবরোধ

  প্রকাশ : ২০১৯-০৪-০৩ ১৮:৫৯:০৬  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : রাষ্ট্রয়াত্ত্ব পাটকল শ্রমিকদের জন্য মজুরি কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়ন না করায় দ্বিতীয় দিনের মত চট্টগ্রাম নগরী ও জেলায় ধর্মঘট ও অবরোধ কর্মসূচি পালন করছেন চট্টগ্রামের দশটি জুটমিলের শ্রমিকরা।

অবরোধের কারণে সীতাকুণ্ডে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের একাংশে সাময়িকভাবে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। নগরীতে আটকা পড়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়গামী একটি শাটল ট্রেন। তবে, এখন পরিস্থিতি শান্ত আছে।

বুধবার (৩ এপ্রিল) সকাল ৮টা থেকে নগরীর আমিন ‍জুটমিলের সামনের সড়কে অবস্থান নেয় কয়েক’শ শ্রমিক-কর্মচারি। বিক্ষোভরত শ্রমিক-কর্মচারিদের আরেক অংশ আমিন জুটমিল সংলগ্ন রেললাইনের উপর অবস্থান নেয়।

সীতাকুণ্ডের হাফিজ জুটমিলের শ্রমিকরা সকাল ১১টার দিকে কারখানা থেকে বের হয়ে মহাসড়কে অবস্থান নেয় বলে জানিয়ে সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘তারা মহাসড়কের একপাশ দিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে। পরে কিছুক্ষণ মহাসড়কে অবস্থান করে।

এসময় মহাসড়কের একপাশ দিয়ে সাময়িক যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। তবে শ্রমিকরা এখন মহাসড়ক থেকে সরে গেছেন বলে জানান তিনি।’

নগর পুলিশের সহকারি কমিশনার (বায়েজিদ বোস্তামি জোন) পরিত্রান তালুকদার বলেন, ‘অবরোধের কারণে সকাল সাড়ে ১১টা পর্যন্ত আমিন জুটমিলের সামনের সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। সাড়ে ৮টার দিকে একটি শাটল ট্রেন চট্টগ্রাম রেলস্টেশন থেকে আমিন জুটমিল এলাকায় এসে আটকে পড়ে।

আমরা শ্রমিকদের বুঝিয়ে রেললাইন থেকে সরিয়ে নিলে আধাঘন্টা পর ট্রেনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে চলে যায়। সাড়ে ১১টার দিকে শ্রমিকরা রাস্তা থেকে সরে গিয়ে কারখানার ভেতরে বিক্ষোভ করছেন।’

বকেয়া বেতন, মজুরি কমিশন বাস্তবায়নসহ নয় দফা দাবিতে গত ২ মার্চ থেকে এই আন্দোলন চলছে। পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী গতকালও (মঙ্গলবার) শ্রমিকরা চট্টগ্রামে রাজপথ-রেলপথ অবরোধ করে।

সরকার ঘোষিত জাতীয় মজুরি ও উৎপাদনশীলতা কমিশন-২০১৫ এর সুপারিশ বাস্তবায়ন, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক কর্মচারীদের প্রভিডেন্ড ফান্ড-গ্র্যাচুইটি ও মৃত শ্রমিকের বীমার বকেয়া প্রদান, বরখাস্ত শ্রমিকদের কাজে পুনর্বহাল, শ্রমিক-কর্মচারীদের নিয়োগ ও স্থায়ী করা, পাট মৌসুমে পাট কেনার বরাদ্দ বাড়ানো, উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে মিলগুলোকে পর্যায়ক্রমে বিএমআরই করার দাবি রয়েছে এই নয় দফার মধ্যে।



ফেইসবুকে আমরা