বাংলাদেশ, , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯

এখন নিবন্ধন ছাড়া মিলবে না ট্রেনের টিকেট

  প্রকাশ : ২০১৯-০৩-১১ ১৫:৩৪:১২  

পরিস্হিতি২৪ডটকম : নিবন্ধন ছাড়া মিলবে না আন্তঃনগর ট্রেনের টিকেট। আর এই নিবন্ধন করতে লাগবে যাত্রীর নাম, ফোন ও জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বা জন্মসনদ নম্বর। এসব তথ্য টিকিটে প্রদর্শিত হবে। ঢাকা থেকে সারা দেশে চলাচলকারী ৩৩ টি আন্তঃনগর ট্রেনের মধ্যে প্রাথমিকভাবে আটটি আন্তঃনগর ট্রেনে নতুন নিয়মে টিকিট বিক্রি আজ থেকে শুরু হচ্ছে। যারা কিনবেন তাদের যাত্রার দিন নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২০ মার্চ থেকে।
বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্র জানিয়েছে, কালোবাজারি রোধে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এর আগে গত ১ জানুয়ারি সোনার বাংলা ট্রেনে এ পদ্ধতি চালু করা হয়েছিল। এখন সোনার বাংলা ট্রেনের সাথে নতুন করে যুক্ত হচ্ছে সুবর্ণ, মহানগর গোধূলি, মহানগর প্রভাতী, পদ্মা, চিত্রা, পারাবাত ও দ্রুতযান এক্সপ্রেস। একটি এনআইডি নম্বরে সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কেনা যাবে। তবে একবার নাম নিবন্ধন করলে পরবর্তীতে আর নতুন করে নিবন্ধন করতে হবে না। বাংলাদেশ রেলওয়ের ওয়েবসাইট/ ই সেবায়, মোবাইল অ্যাপ ও স্টেশন কাউন্টারে নিবন্ধন (রেজিস্ট্রেশন) করা যাবে।

এ ব্যাপারে রেলওয়ের মহাপরিচালকের দফতর থেকে পাঠানো এক চিঠিতে বলা হয়, এসব ট্রেনের ১ম সিট/ ১ম বার্থ, এসি সিট/এসি বার্থ ও স্নিগ্ধার টিকিট কেনার ক্ষেত্রে নিবন্ধন প্রয়োজন হবে। শোভন শ্রেণির টিকিটের বিষয়ে কিছু উল্লেখ নেই চিঠিতে। তবে এ ব্যাপারে রেলওয়ের মহাপরিচালক কাজী মো. রফিকুল আলম জানিয়েছেন, শোভন শ্রেণির টিকিটের ক্ষেত্রেও এ নিয়ম প্রযোজ্য হবে। রেলসূত্র জানায়, প্রতিবেশী দেশ ভারতে টিকিটে নাম লেখা পদ্ধতি চালু রয়েছে। সেখানে যিনি ভ্রমণ করবেন তার নামেই টিকিট সংগ্রহ করতে হয়। অন্যজনের টিকিট দিয়ে ভ্রমণ করার কোনো সুযোগ নেই। ট্রেনে আলাদা চেকিং হয়, গরমিল হলেই যাত্রীদের আটক করা হয়।
সূত্র আরো জানায়, গত ১ জানয়ারি থেকে সোনার বাংলা এক্সপ্রেসে মোবাইল নম্বর ও এনআইডি অথবা জন্মসনদ দিয়ে টিকিট বিক্রি শুরু করা হয়। প্রথম দিকে কিছু সমস্যা হলেও পরবর্তীতে এর সুফল মেলে। এ কারণেই গত ১৩ ফেব্রয়ারি রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালকের সভাপতিত্বে রেলভবনে রেলওয়ের টিকিট সংক্রান্ত সভায় এ নতুন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। জানা গেছে, যারা টিকিট বিক্রি করবেন (বুকিং সহকারী), তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। যাতে তারা যাত্রীর নাম সঠিক বানানসহ লিখতে পারেন।
এ প্রসঙ্গে কমলাপুর রেলস্টেশনের ম্যানেজার সীতাংশু চক্রবর্তী বলেন, সোনার বাংলায় এনআইডি চালু করায় সুফল পাওয়া গেছে। নতুন ব্যবস্থাপনায় টিকিট নিতে কী যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হবে -এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোন ভোগান্তি হবে না। কারণ একবার নিবন্ধন করলে দ্বিতীয়বার আর করতে হবে না। পরবর্তীতে যাত্রীর মোবাইল নম্বর সার্চ দিলেই সব তথ্য চলে আসবে। তিনি আরো বলেন, যেসব কাউন্টার থেকে টিকিট দেওয়া হয়, সেই কাউন্টার থেকেই নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ করে টিকিট সংগ্রহ করা যাবে।



ফেইসবুকে আমরা