বাংলাদেশ, , বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০

আনোয়ারায় কেঁয়াগড় স্কুল সড়ক অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ায় এলাকাবাসীর ক্ষোভ

  প্রকাশ : ২০২০-০৭-২২ ১৮:১৪:০৩  

অনুতোষ দত্ত বাবু,(আনোয়ারা-চট্টগ্রাম)/পরিস্হিতি২৪ডটকম :  চট্টগ্রাম জেলাধীন আনোয়ারা উপজেলার কেঁয়াগড় গ্রামে এডিপি প্রকল্পের অধীনে বাস্তবায়নাধীন সড়ক অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আর সড়কটি অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে ােভ ও হতাশা বিরাজ করছে। কিন্তু এই সড়কের বিষয়ে অভিযোগ উঠলেও সড়কটি অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে কিছুই জানেন না খোদ ঐ এলাকার চেয়ারম্যান ইয়াসিন হিরু। সূত্র মতে জানা যায়, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় মাননীয় ভূমিমন্ত্রীর সুপারিশে প্রকল্পটি পাশ হয়। উক্ত প্রকল্পের অধীনে কেঁয়াগড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে অত্র কেঁয়াগড় গ্রামের পূর্বপাড়া পর্যন্ত এক কিলোমিটার সড়কের আর.সি.সি ডালাই বাবদ আট লাখ টাকা বরাদ্দ হয় এবং এ বছরের শুরু নাগাদ কাজ আরম্ভ হওয়ার কথা থাকলেও বিভিন্ন জটিলতার কারণে কাজ শুরু হতে দেরি হয়। এ সুযোগে স্থানীয় একটি কুচক্রী মহল উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলীকে হাত করে সড়কটি সরিয়ে নিয়ে ফজল আহম্মদ চৌধুরীর বাড়ির সড়কে নিয়ে যায়, যার কাজ বর্তমানে চলমান। এ ব্যাপারে অত্র এলাকার চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি শারীরিক অসুস্থতার কারণে কিছুদিন বাসার মধ্যে অবস্থান করছিলাম। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে এলাকার কিছু কুচক্রী মহল মন্ত্রীর সাহেবের নাম ভাঙিয়ে আমাকে কিছু না বলে আমার এলাকার বরাদ্দকৃত কাজ অন্য এলাকায় কেটে নিয়ে যায় এবং কাজ চালু করে দেয়। ইউপি চেয়ারম্যান আরও বলেন, এ ব্যাপারে আমি ইউএনও ও উপজেলা চেয়ারম্যানকে অবগত করি। অত্র এলাকার বাসিন্দা সমীর কান্তি বলেন, আমাদের গ্রামে উন্নত সড়কের অভাবে আমরা মানবেতর জীবনযাপন করছি। এর মধ্যে মন্ত্রীর সুপারিশে একটি সড়কের উন্নয়নের কাজ বরাদ্দ হয়, তাও আবার এলাকার মতাবান কিছু লোকের কারণে আমাদের এলাকার কাজ অন্যত্র কেটে নেওয়া হয়। আর আমরা এই বিষয়ে জানা মাত্র গ্রামের লোকজনকে নিয়ে উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ে যাই এবং এই বিষয়ে আমাদের অভিযোগের কথা মৌখিকভাবে বলি। তখন নির্বাহী প্রকৌশলী আমাদেরকে বলেন, এটা উপর মহল থেকে নির্দেশ দিয়েছে। তবে উপরমহল কে তা তিনি স্পষ্ট করেননি। উল্লেখিত সড়কের বিষয়ে এলাকাবাসী হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। কেননা দীর্ঘদিন ধরে কেঁয়াগড় গ্রামে উন্নয়নের কোনো ছোঁয়া লাগেনি। যদিও বারবার উন্নয়নের দোহাই দিয়ে এলাকাবাসীর কাছ থেকে ভোট আদায় করা হয়েছে। এতদিন পরে এই এলাকায় এক কিলোমিটার সড়ক নির্মাণের জন্য বরাদ্দ হলেও তা অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার মতো ঘটনা ঘটায় পুনরায় এলাকাবাসী তাদের এলাকার নামে মাননীয় ভূমিমন্ত্রীর বরাদ্দকৃত সড়কটি ফিরিয়ে পেতে সংশ্লিষ্ট মহলের হস্তপে কামনা করেন।



ফেইসবুকে আমরা