বাংলাদেশ, , মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯

অনিরাপদ খাদ্যের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও ক্যাব চট্টগ্রামের জিরো টলারেন্স ঘোষনা

  প্রকাশ : ২০১৯-০২-০৩ ১৭:২৮:০১  

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও ক্যাব চট্টগ্রামের উদ্যোগে জাতীয় নিরাপদ খাদ্য দিবস উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভায় মেয়র নাছির : অনিরাপদ খাদ্যের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও ক্যাব চট্টগ্রামের জিরো টলারেন্স ঘোষনা

পরিস্হিতি২৪ডটকম : চট্টগ্রাম সিটিকর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আজম নাছির উদ্দীন বলেছেন অনিরাপদ খাদ্যের কারনে প্রাণঘাতি নানা রোগে আগামি প্রজন্ম আক্রান্ত হচ্ছে। মানুষকে অনিরাপদ খাদ্য তৈরী ও বাজারজাতকরণ রোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন করতে হলে এখাতে ব্যবসায়ীদের যেমন সর্তক হতে হবে, তেমনি ভোক্তা হিসাবে সাধারণ জনগনকেও খাদ্য ক্রয়ে সচেতন হতে হবে। সেকারনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও ক্যাব চট্টগ্রাম নগরীতে অনিরাপদ খাদ্যের বিরুদ্ধে বছরব্যাপী প্রচারণা কর্মসূচি পরিচালনা করবে। অনিরাপদ খাদ্যের বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশণ ও ক্যাব চট্টগ্রাম জিরো টলারেন্স ঘোষনা করেছে। এজন্য আগামি ০১লা মার্চ থেকে নগরীর সর্বত্র হোটেল রেস্তোরা, খাদ্য উৎপাদানকারী প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে সিটিকর্পোরেশন এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ক্যাবসহ অভিযান পরিচালনা করা হবে। একই সাথে নগরবাসীসহ সাধারন জনগনের মাঝে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্ঠিতে ওয়ার্র্ড পর্যায়ে সচেতনতামুলক র‌্যালী, আলোচনা সভা, পথ নাটক, সাংস্কৃৃতিক অনুষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে ডকুমেন্টারী ফিল্ম প্রদর্শণী, পোস্টার, লিফলেট বিতরনসহ নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হবে। ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও কন্যজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রামের উদ্যোগে জাতীয় নিারাপদ খাদ্য দিবস উপলক্ষে র‌্যালী, শোভাযাত্রার উদ্বোধন ও র‌্যালীত্তোর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আজম নাছির উদ্দীন উপরোক্ত ঘোষনা দেন।

চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী ডিসি হিল চত্বরে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ক্যাব কেন্দ্রিয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন। ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাধারন সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরীর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটিকর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী মোঃ সামসুজ্জোহা, সচিব আবুল হোসেন ও মেয়রের একান্ত সচিব মফিদুল আলম। বক্তব্য রাখেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক হাসানুজ্জমান, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ডাঃ জাকিয়া আকতার, সিটিকর্পোরেশনের উপ-সচিব আশেক রসুল, ক্যাব মহানগর সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু, বাংলাদেশ রেস্তারা মালিক সমিতি সভাপতি ইলিয়াছ ভুঈয়া, মহানগর দোকান মালিক সমিতির সহ-সভাপতি খালেদ খান চৌধুরী, বাংলাদেশ কিন্ডারগার্ডেন ঐক্য পরিষদের বিভাগীয় সভাপতি অধ্যক্ষ ইকবাল বাহার চৌধুরী, চট্টগ্রাম ড্রিংকিং ওয়াটার ম্যানুফ্যাকচারস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক ফয়সল আবদুল্লাহ আদনান, ক্যাব চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা সভাপতি আলহাজ্ব আবদুল মান্নান, মহানগরের সাধারণ সম্পাদক অজয় মিত্র শংকু, যুগ্ন সম্পাদক এ এম তৌহিদুল ইসলাম, ক্যাব নেতা হাজী আবু তাহের, শাহীন চৌধুরী, জানে আলম, সেলিম জাহাঙ্গীর, সেলিম সাজ্জাদ, হারুন গফুর ভুইয়া, সোমাইয়া সালাম, অধ্যক্ষ মনিরুজ্জমান, আবু ইউনুচ, উন্নয়ন সংগঠক শাহাদত হোসেন, নজরুল ইসলাম মান্না, সৌরভ বড়ুয়া, নার্গিস চৌধুরী, যুব সংগঠক নিশি আকতার, মোহাম্মদ এহসান প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আজম নাছির উদ্দীন আরও বলেন বর্তমান সরকার মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর নেতৃত্বে খাদ্য নিরাপত্তায় সফলতা অর্জন করেছেন। দেশ খাদ্য উৎপাদনে অনেকখানি সফলতা অর্জন করেছে। কিন্তু সাধারন জনগনের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত এখনও সম্ভব হয়নি। সেকারনে সরকারও অনিরাপদ খাদ্যের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করেছেন। তাই এখন প্রয়োজন যারা খাদ্যে ভেজাল মিশ্রণ ও অনিরাপদ খাদ্য উৎপাদনে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা, তাদেরকে সামাজিক ভাবে বয়কট করার জন্য ব্যাপক জনমত তৈরী করতে হবে।

“সুস্থ সবল জাতি চাই, পুষ্টিসম্মত নিরাপদ খাদ্যের বিকল্প নাই” শীর্ষক দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয়ের উপর আলোকপাত করে বিভিন্ন বক্তাগন বলেন খাদ্য মানুষের মৌলিক অধিকার। খাদ্যের অভাবে মানুষ এক সময় না খেয়ে মরতো, এখন মানুষ আর না খেয়ে মরছে না, মানুষ মরছে অনিরাপদ, ভেজাল, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে উৎপাদন ও বিপপনকৃত খাদ্য খেয়ে। বৈজ্ঞানিকদের মতে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে হলে কৃষকের মাঠ থেকে গৃহিনীর খাবার টেবিলে খাদ্য পরিবেশন পর্যন্ত নিরাপদ খাদ্যের যাবতীয় বিধিবিধান গুলি যথাযথভাবে অনুসরন করা না হলে নিরাপদ খাবার নিশ্চিত হবে না।

চট্টগ্রাম সিটিপকর্পোরেশন চত্বর থেকে শুরু হয়ে ডিসি হিলে র‌্যালী ও শোভাযাত্রায় সিটিকর্পোরেশনের কাউন্সিলর, সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তা, চেম্বার, ব্যবসায়ী ও ক্যাব নেতৃবৃন্দ, হোটেল-রেস্তোতা মাািলক সমিতি, বেকারী ও খাদ্য উৎপাদনকারী, র‌্যাব-৭, সিএমপি, সাংবাদিক, উন্নয়ন সংঠক, সামাজিক সংগঠন, পেশাজীবিসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সম্মানিত শিক্ষকমন্ডলী ও ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রহন করেন।

প্রেসবিজ্ঞপ্তি



ফেইসবুকে আমরা